ছাগল চোর অপবাদ দিয়ে ভ্যান চালক ও যুবককে বেঁধে পেটাল প্রতিবেশী

প্রকাশিত: ৮:২৮ অপরাহ্ণ, জানুয়ারি ১০, ২০২১

রাজবাড়ী প্রতিনিধি

ভ্যানচালক ছাব্বির (১৯) ও ভ্যানে থাকা সুমন (৩৫) নামে এক যাত্রীকে ছাগল চোর আখ্যা দিয়ে নির্দয়ভাবে পিটিয়েছে প্রতিবেশী। পরে কোমরে রশি বেঁধে ছাব্বির ও সুমনকে প্রকাশ্যে সড়কে হাঁটিয়ে নিয়ে যাওয়া হয় স্থানীয় ওহাব মন্ডলের বাড়িতে। সেখানে ওহাব মন্ডল নিজেও তাদের আবার প্রহার করেন বলে অভিযোগ ওঠে। সেই সাথে সুমন নামের যুবককে ধারালো অস্ত্র দিয়ে জখম করা হয়। একপর্যায়ে তাদের শারীরিক অবস্থার অবনতি হলে স্থানীয় আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আকবর হোসেন ও আহতদের পরিবার তাদেরকে উদ্ধার করে পাংশা উপজেলা হাসপাতালে ভর্তি করে।

ঘটনাটি ঘটে রাজবাড়ী জেলার পাংশা থানার অন্তর্গত মাছপাড়া ইউনিয়নে। শনিবার (৯ জানুয়ারী) দুপুর ২ টায় পাংশা থানার শেষভাগ ও খোকশা থানার সীমান্ত বিলজানি এলাকায় এ ঘটনা ঘটে। এলাকার মানুষের মাঝে শনিবার রাতে বিষয়টি ভাইরাল হয়। নির্যাতনের শিকার ছাব্বির ও সুমন পাংশা হাসপাতালে চিকিৎসাধীন। তাদের মধ্যে ছাব্বিরের শারীরিক অবস্থা কিছুটা উন্নতি হলেও সাময়িক সময়ের জন্য সে হারিয়ে ফেলেছে তার চালাল ক্ষমতা। অপরদিকে সুমন এখনও শংকামুক্ত নয় বলে জানিয়েছেন হাসপাতালের চিকিৎসকরা।

এ বিষয়ে পাংশা থানার অফিসার ইনচার্জ শাহাদাত হোসেন বলেন,

আমরা এখন পর্যন্ত এ ব্যাপারে কোনো তথ্য পায়নি। বিষয়টি আমরা আমলে নিয়ে দেখছি। এটা যদি সাজানো ও পরিকল্পিত ঘটনা হয়ে থাকে তবে দোষীদের অবশ্যই আইনের আওতায় নিয়ে আসা হবে।

ঘটনার একাধিক প্রত্যক্ষদর্শী জানিয়েছেন,

একদফা ভ্যানচালক ও ভ্যানে থাকা যাত্রীর ওপর নির্যাতন চলার পর তাদেরকে রশিতে বেঁধে এনে আবার নির্মমভাবে নির্যাতন করেন। উপর্যুপরি নির্যাতন শেষে মুমূর্ষু অবস্থায় পরিবারের হাতে তুলে দেন। কিন্তু এব্যাপারে যারা ছাগল চোরের অপবাদে তাদেরকে পিটিয়েছে তারা থানায় কোনো প্রকার ইনফর্ম করেনি।

এব্যাপারে ভ্যানচালক ছাব্বির জানান, শনিবার (৯ জানুয়ারী) দুপুরে সে সুমনকে সাথে নিয়ে খোকশা ডাব বিক্রি করতে যাচ্ছিলেন ওই সময় লক্ষণদিয়া এলাকা থেকে আনাই মন্ডলের ছেলে রাকিব মন্ডল একটি ছাগল ছাব্বিরের ভ্যানে তুলে দিয়ে খোকশা বাজারের নিয়ে যেতে বলে। তারা বিলজানি নামক বাজারের কাছাকাছি পৌছালে রাকিব মন্ডল, সিরাম মন্ডল (পিতা হোসেন মন্ডল) কয়েকজন লোক নিয়ে ছাগল চোর অপবাদ দিয়ে তাদের উপর হামলা চালায়। ছাব্বিরকে ভ্যানের সাথে বেঁধে ইট দিয়ে তার দুই পায়ে আঘাত করে। পরে লক্ষণদিয়া ওহাব মন্ডলের বাড়িতে এনে ওহাব মন্ডলে তার ছাগল চুরি হয়েছে এই অপবাদে সুমনের উপর ধারালো অস্ত্র দিয়ে আঘাত করে ও বাশ দিয়ে ছাব্বিরকে আঘাত করে। দুপুর ২টা থেকে বিকেল সাড়ে চারটা পর্যন্ত তাদেরকে আটকে রেখে চলে এই নির্যাতন)।

সুমনের পরিবার জানিয়েছে, এর আগে বেশ কয়েকটি বিষয় নিয়ে ওহাব মন্ডলের পরিবারের লোকেদের সাথে তাদের ঝামেলার সৃষ্টি হয় যার পরিপ্রেক্ষিতে এমন ঘটনা ঘটছে।




error: কপি রাইট আইনে সর্বস্বত সংক্ষিত