কক্সবাজারের উখিয়ায় গলা কেটে হত্যা

প্রকাশিত: ৮:২২ অপরাহ্ণ, জানুয়ারি ১০, ২০২১

কক্সবাজারের উখিয়া উপজেলার কোটবাজার স্টেশনে নিজ কর্মস্থলে এক কিশোরকে গলা কেটে হত্যা করা হয়েছে। আয়াছ নামক এক রোহিঙ্গা যুবক কিশোর দ্বারা এই জঘন্য হত্যাকান্ড সংগঠিত হয় বলে জানা গেছে।

নিহত কিশোর মোহাম্মদ ফোরকান প্রকাশ কালু (১৪) রত্নপালং ইউনিয়নের তেলিপাড়া এলাকার বশির আহমেদের ছেলে বলে জানা গেছে। সে দীর্ঘদিন ধরে কোটবাজারস্থ স্থানীয় শাহ আলমের ডেকোরেটার্সের দোকানে কাজ করে এসছিল।

রোববার (১০ ডিসেম্বর) দুপুর পৌনে ১২ টার দিকে উ কোটবাজারের ডেকোরেটার্স দোকান থেকে এ কিশোরের গলা কাটা লাশ উদ্ধার করে উখিয়া থানা পুলিশ।

দোকান মালিক শাহ আলম এর ভাষ্যমতে, রোহিঙ্গা যুবক আয়াছকে সে চিনে না, ঘটনার আগের দিনই তাকে কাজে নেয়া হয়। গত শনিবার রাত ১২ টার পর নিহত ফোরকান ও রোহিঙ্গা যুবক আয়াছকে দোকানে রেখে মালিক শাহ আলম যথারীতি বাসায় চলে যায় । আজ সকালে এসে ফোরকান প্রকাশ কালুর মরদেহ দেখতে পায়। রোহিঙ্গা যুবক আয়াছ এর অনুপস্থিতি লক্ষ করে ।

নিহত কালুর বাবা বশির আহমেদ বলেন, কে বা কারা কেন আমার ছেলেকে হত্যা করেছে আমি এখনো জানি না। তবে রোহিঙ্গা যুবক আয়াছকেই সন্দেহ করা হচ্ছে। সকালে শুনা মাত্রই নিহতের বাবা কোটবাজার ছেলে কালুর কর্মস্থল এ এসে নিহত অবস্থায় দেখতে পায়।

বিষয়টি নিশ্চিত করে উখিয়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (তদন্ত) গাজী সালাউদ্দিন বলেন, খবর পাওয়ার সাথে সাথেই তারা লাশ উদ্ধার করে ময়না তদন্তের জন্য কক্সবাজার সদর হাসপাতালে পাঠায়। কে বা কারা এ হত্যাকান্ড ঘটিয়েছে তা খতিয়ে দেখছে পুলিশ। এছাড়াও পুলিশের বিশেষ ইউনিট সিআইডির একটি দল ঘটনাস্থলের পথে রয়েছে বলেও জানান এ কর্মকর্তা।
এদিকে নিহতের স্বজনরা উক্ত খুনের নিরপেক্ষ তদন্তের সহিত উপযুক্ত শাস্তি মৃত্যুদন্ডের আবেদন করেছেন।




error: কপি রাইট আইনে সর্বস্বত সংক্ষিত