ঘন কুয়াশায় দৌলতদিয়া-পাটুরিয়া নৌপথ, কাজে আসছে না কোটি টাকার ফগলাইট

প্রকাশিত: ৮:০৯ অপরাহ্ণ, জানুয়ারি ২৫, ২০২১

 ঘন কুয়াশার কারণে ব্যাস্ততম দৌলতদিয়া-পাটুরিয়া নৌপথে প্রতিনিয়তই ফেরি চলাচল ব্যাহত হচ্ছে। কুয়াশায় ফেরি বন্ধ থাকায় এ নৌপথে প্রতিনিয়তই থাকছে যাত্রীবাহি, পণ্যবাহি পরিবহনের দীর্ঘ সিরিয়াল।

এতে শীত ও কুয়াশার মধ্যে চরম ভোগান্তির শিকার হচ্ছে সিরিয়ালে আটকে থাকা বিভিন্ন গাড়ির চালকসহ হাজার হাজার যাত্রী। গত ৭দিনে (গত রোববার ৮ ঘন্টা, সোমবার সাড়ে ১০ ঘন্টা, মঙ্গলবার সাড়ে ৮ ঘন্টা, বৃহস্পতিবার ৮ ঘন্টা, শুক্রবার সাড়ে ৯ ঘন্টা, শনিবার ৬ঘন্টা এবং রোববার ১২ঘন্টা) পৃথক পৃথক সময়ে দৌলতদিয়া-পাটুরিয়া নৌপথে মোট সাড়ে ৬২ঘন্টা ফেরি চলাচল বন্ধ থাকে। ঘাটসংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা যায়, দক্ষিণ-পশ্চিম অঞ্চলের সঙ্গে রাজধানী ঢাকার সড়ক যোগাযোগে দৌলতদিয়া-পাটুরিয়া একটি গুরুত্বপূর্ণ নৌপথ। প্রতিদিন সেখানে যাত্রীবাহী বাস, পণ্যবাহী ট্রাকসহ প্রায় সাড়ে ৩হাজার ছোট বড় বিভিন্ন গাড়ি ফেরি পারাপার হয়। কিন্তু সেই ফেরিগুলোতে ঘন কুয়াশার মধ্যে চলাচলের ক্ষেত্রে উন্নত প্রযুক্তিসম্পন্ন আলোক নিক্ষেপের বিশেষ কোন ব্যাবস্থা নেই।

ফলে প্রতি বছর শীত মৌসুমে কুয়াশা কালীন সময়ে সেখানে ফেরি চলাচল বন্ধ থাকে। এতে ফেরিপার হতে আসা শত শত বিভিন্ন ধরনের গাড়ি আটকা পড়ে ঘাটে দীর্ঘ যানজটের সৃষ্টি করে। মাত্র তিন কিলোমিটার দীর্ঘ এই নৌপথ পাড়ি দিতে এসে ঘন্টার পর ঘন্টা আটকা পড়ে ভোগান্তির শিকার হন বিভিন্ন ধরনের গাড়ির চালকসহ হাজার হাজার যাত্রী। জানা গেছে, ঘন কুয়াশার মধ্যে নৌপথে ফেরি চলাচল স্বাভাবিক রাখার জন্য ২০১৫ সালের জুন মাসে নৌ মন্ত্রণালয় টেন্ডারের মাধ্যমে মোট ১০টি ফেরিতে ৫ কোটি টাকার উচ্চ ক্ষমতা সম্পন্ন ফগলাইট স্থাপন করে। সাড়ে ৭ হাজার কিলোওয়াটের প্রতিটি ফগলাইট ক্রয় বাবদ খরচ হয় অর্ধ কোটি টাকার উপরে। অথচ কুয়াশায় পূর্বের সার্চ লাইটে নৌ চ্যানেলের মার্কার যতটুকু দেখা যায়, নতুন স্থাপিত ওই ’ফগলাইটে’ তাও দেখা যায় না। ফলে মূল্যবান ‘ফগলাইট’গুলো কুয়াশায় ফেরি চলাচলে কোন কাজেই আসছে না। স্থাপনের পর থেকে সেগুলো পরিত্যাক্ত অবস্থায় পড়ে আছে।

এ প্রসঙ্গে বাংলাদেশ অভ্যন্তরীণ নৌপরিবহন সংস্থার (বিআইডব্লিউটিসি) সহকারি মহাব্যবস্থাপক মো. জিল্লুর রহমান ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, ‘ঘন কুয়াশার কারণে দীর্ঘ সময় জুড়ে ফেরি চলাচল বন্ধ থাকায় দৌলতদিয়া ও পাটুরিয়া ঘাটে যানজট সৃষ্টি হয়ে আছে।’ তবে, পরীক্ষামূলক ভাবে দশটি ফেরিতে স্থাপিত ফগলাইটের সঙ্গে বিমানে ব্যবহৃত রাডার সংযুক্ত করা গেলে ঘন কুয়াশার মধ্যে নৌপথে ফেরি চলাচল স্বাভাবিক রাখা সম্ভব হবে বলে তিনি জানান।




error: কপি রাইট আইনে সর্বস্বত সংক্ষিত