বাংলাদেশ, , সোমবার, ২২ এপ্রিল ২০২৪

শেখ হাসিনাকে ভারত সফরের আমন্ত্রণ মোদির

বাংলাদেশ পেপার ডেস্ক ।।  সংবাদটি প্রকাশিত হয়ঃ ২০১৯-০৮-২০ ১৯:২৮:২১  

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে ভারত সফরের আমন্ত্রণ জানিয়েছেন দেশটির প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি। মঙ্গলবার বিকালে গণভবনে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সঙ্গে সাক্ষাৎ করে তার হাতে মোদির আমন্ত্রণপত্র তুলে দেন ঢাকায় সফররত ভারতের পররাষ্ট্রমন্ত্রী এস জয়শঙ্কর।

সাক্ষাৎকার শেষে সাংবাদিকদের ব্রিফ করেন প্রধানমন্ত্রীর প্রেস সচিব ইহসানুল করিম।

প্রেস সচিব জানান, অক্টোবরের প্রথম সপ্তাহে প্রধানমন্ত্রীকে দ্বিপাক্ষিক সফরে ভারতে যাওয়ার আমন্ত্রণ জানানো হয়েছে। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা এ আমন্ত্রণের জন্য ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদিকে ধন্যবাদ জানিয়েছেন।

ইহসানুল করিম বলেন, ‘ভারতের পররাষ্ট্রমন্ত্রী বলেছেন, গত পাঁচ বছরে বাংলাদেশ ও ভারতের মধ্যে সম্পর্ক নতুন উচ্চতায় পৌঁছেছে। আমাদের বোঝাপড়া, বিভিন্ন খাতের সহযোগিতা এগুলো আরও গতিশীল হয়েছে।’

দুদেশের মধ্যে মানুষের যাতায়াত আরও সহজ করতে নয়া দিল্লি কাজ করছে বলে জানান দেশটির পররাষ্ট্রমন্ত্রী জয়শঙ্কর।

জ্বালানি খাতে বাংলাদেশের সঙ্গে ভারতের সহযোগিতার আগ্রহের কথা উল্লেখ করেন ভারতের এ পররাষ্ট্রমন্ত্রী। পাশাপাশি খরচ কম হওয়ায় জলবিদ্যুৎ খাতে সহযোগিতার উপরও গুরুত্বারোপ করেন তিনি।

প্রেস সচিব ইহসানুল করিম বলেন, চট্টগ্রাম, মংলা ও পায়রা বন্দরকে ব্যবসা-বাণিজ্যের ক্ষেত্রে আরও ব্যবহারের ওপর গুরুত্বারোপ করে প্রধানমন্ত্রী বলেছেন- দুদেশের মধ্যে কানেকটিভিটি সম্প্রসারিত হচ্ছে। নতুন অনেক রুট বাড়ছে। আমাদের মধ্যে চমৎকার দ্বিপাক্ষিক সম্পর্ক এবং বিভিন্ন খাতে দারুণ সহযোগিতা রয়েছে।

ভারত বাংলাদেশের অকৃত্রিম বন্ধু উল্লেখ করে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেন, স্বাধীনতা যুদ্ধের সময় থেকে বাংলাদেশকে সহযোগিতা অব্যাহত রেখেছে ভারত।

এর আগে সোমবার তিনদিনের সফরে ঢাকায় আসেন ড. এস জয়শঙ্কর। রাতে হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে পৌঁছলে তাকে স্বাগত জানান পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. একে আবদুল মোমেন।

পরে মঙ্গলবার সকালে ধানমণ্ডির ৩২ নম্বরে বঙ্গবন্ধু স্মৃতি জাদুঘরে বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে শ্রদ্ধা নিবেদন করেন ভারতের পররাষ্ট্রমন্ত্রী। এর পর বেলা ১১টায় রাষ্ট্রীয় অতিথি ভবন যমুনায় পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. একে আবদুল মোমেনের সঙ্গে বৈঠকে বসেন ভারতের পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. এস জয়শঙ্কর। বৈঠকে দ্বিপক্ষীয় বহু বিষয়ে আলোচনা হয়েছে।


পূর্ববর্তী - পরবর্তী সংবাদ
       
                                             
                           
ফেইসবুকে আমরা