পাংশা পৌরসভা নির্বাচনে ‘বিদ্রোহী’ মেয়র প্রার্থী হওয়ায় যুবলীগ নেতাকে বহিষ্কার

প্রকাশিত: ২:৩৪ অপরাহ্ণ, জানুয়ারি ২১, ২০২১

রাজবাড়ীর পাংশা পৌরসভা নির্বাচনে মেয়র পদে আওয়ামী লীগের ‘বিদ্রোহী’ প্রার্থী হওয়ার অভিযোগে যুবলীগের নেতা ফজলুল হক ফরহাদকে সংগঠন থেকে বহিষ্কার করা হয়েছে। বুধবার তাঁকে বহিষ্কারের বিষয়টি সংবাদ বিজ্ঞপ্তির মাধ্যমে জানানো হয়েছে।

ফজলুল হক ফরহাদ পাংশা উপজেলা যুবলীগের আহ্বায়ক। পৌরসভা নির্বাচনে তিনি স্বতন্ত্র প্রার্থী হিসেবে জগ প্রতীক নিয়ে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছিলেন। তাঁকে বহিষ্কারের খবরটি সাংবাদিকদের নিশ্চিত করেছেন জেলা যুবলীগের যুগ্ম আহ্বায়ক আবুল হোসেন সিকদার।

জেলা যুবলীগের প্যাডে পাঠানো সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে সই করেছেন জেলা যুবলীগের আহ্বায়ক জহুরুল ইসলাম ও যুগ্ম আহ্বায়ক আবুল হোসেন সিকদার। এতে বলা হয়, ‘আপনি (ফরহাদ) পাংশা পৌরসভায় নৌকা প্রতীকের বিপক্ষে প্রার্থী হয়েছেন। এতে সংগঠনের শৃঙ্খলা লঙ্ঘিত ও ভাবমূর্তি ক্ষুণ্ন হয়েছে। এমতাবস্থায় গঠনতন্ত্রের ২২(ক) ধারা মোতাবেক সংগঠনের কেন্দ্রীয় কমিটির চেয়ারম্যান শেখ ফজলে শামস পরশের নির্দেশে জেলা যুবলীগের কার্যনির্বাহী কমিটির সিদ্ধান্তক্রমে সংগঠন থেকে বহিষ্কার করা হলো।’

স্বতন্ত্র মেয়র প্রার্থী ফজলুল হক ফরহাদ সাংবাদিকদের বলেন, বিষয়টি শুনেছেন তিনি। তবে দীর্ঘদিন ধরে রাজবাড়ীতে যুবলীগের কোনো কমিটি নেই। তাই কারা বহিষ্কার করেছেন বা কেন বহিষ্কার করেছেন, তা জানেন না তিনি। তাঁকে সংগঠন থেকে ফোন করে বা আনুষ্ঠানিকভাবে কেউ এ বিষয়ে কিছু জানাননি। ফজলুল হক বলেন, তিনি স্বতন্ত্র প্রার্থী হিসেবে মাঠে ছিলেন। এখনো নির্বাচনের মাঠে আছেন।

তৃতীয় ধাপে ৩০ জানুয়ারি পাংশা পৌরসভার নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে। নির্বাচনে মেয়র পদে মোট চারজন প্রার্থী মনোনয়নপত্র জমা দেন। তাঁদের মধ্যে একজন মনোনয়নপত্র প্রত্যাহার করে নিলে তিনজন মেয়র পদে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন। তাঁরা হলেন আওয়ামী লীগের মনোনীত প্রার্থী (নৌকা প্রতীক) মো. ওয়াজেদ আলী, বিএনপি মনোনীত প্রার্থী (ধানের শীষ) মো. রইচ উদ্দিন খান এবং স্বতন্ত্র প্রার্থী (জগ প্রতীক) মো. ফজলুল হক ফরহাদ। ওয়াজেদ আলীর ভাই উপজেলা ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি ইদ্রিস আলী মনোনয়নপত্র প্রত্যাহার করে নেন।




error: কপি রাইট আইনে সর্বস্বত সংক্ষিত