কক্সবাজার ছাত্রলীগের সাবেক সহ-সভাপতি হিমেল আটক

প্রকাশিত: ২:০০ পূর্বাহ্ণ, জানুয়ারি ৮, ২০২১

বিশেষ প্রতিবেদকঃ

অশ্লীল ছবি দিয়ে চাঁদা দাবি ও ব্লাকমেইল করা কক্সবাজার ছাত্রলীগের সাবেক সহ-সভাপতি হিমেল আটক

প্রথমে বন্ধুত্ব, তারপর প্রেম ভালবাসা, সেখান থেকে শারিরীক সম্পর্কে জড়িয়ে পড়ে স্কুল শিক্ষিকা তসলিমা আক্তার ও কক্সবাজার জেলা ছাত্রলীগের সাবেক সহ-সভাপতি মিজানুর রহমান হিমেল (৩৪)। সম্পর্ক চলাকালীন তোলা অশ্লীল ছবি দিয়ে তসলিমার স্বামীরর কাছে চাঁদা দাবি ও ব্লাকমেইল করতে থাকে হিমেল।

এমন অভিযোগে বৃহস্পতিবার (৭ ডিসেম্বর) রাতে কক্সবাজার সদর মডেল থানায় মামলা দায়ের করেছেন ভুক্তভোগী শিক্ষিকার স্বামী মো. শাহজাহান। এর আগেই সকালে শহরের বাস-টার্মিনাল এলাকা থেকে অভিযুক্ত মিজানুর রহমান হিমেল কে আটক করে র‌্যাব-১৫ সদস্যরা।

বাদী শাহজাহানের দায়ের করা এজাহার সুত্রে জানাযায়, তার স্ত্রী তসলিমা আক্তারের সঙ্গে বিয়ের আগে থেকে হিমেলের বন্ধুত্বপুর্ণ সম্পর্ক হয়। সে সুবাধে বিয়ের প্রলোভন দেখিয়ে বিভিন্ন সময় কয়েক দফা শারিরীক সম্পর্ক জড়ায়। সে সময় তসলিমার অজান্তে কিছু ছবি ধারণ করে রাখে সে।

২০১৯ সালের ২২ ফেব্রুয়ারী আমাদের পারিবারিক ভাবে বিয়ে হয়। বিয়ের ৬ মাস পর আমি সৌদি আরব চলে যায়। সে সুযোগে হিমেল আমার স্ত্রীর সঙ্গে আবারো যোগাযোগের চেষ্টা করে। তার সাথে যোগাযোগ না রাখায় সে বিয়ের পূর্বে আমার স্ত্রী সঙ্গে তোলা অশ্লীল ছবি আমার মেসেঞ্জারে পাঠাতে থাকে। এক পর্যায়ে সে তসলিমাকে তালাক দিতে বলে না হলে মোটা অংকের চাঁদা দাবী করে।

এজাহারেঙ বলা হয়, অভিযুুক্ত মিজানুর রহমান হিমেল কক্সবাজার সদর থানাধীন উত্তর ডিককুল এলাকার মৃত ছৈয়দ আহমেদ মাস্টারের ছেলে ও জেলা ছাত্রলীগের সাবেক সহ-সভাপতি। তাই বিভিন্ন সময় চাঁদা দাবি করে ভয়-ভীতি দেখাতো। এক পর্যায়ে র‌্যাব-১৫ কক্সবাজারের অধিনায়ক বরাবরে লিখিত অভিযোগ দিলে বৃহস্পতিবার সকাল ৯ টার দিকে বাস-টার্মিনাল এলাকা থেকে তাকে আটক করা হয়।

কক্সবাজার র‌্যাব-১৫ এর সহকারী পরিচালক (মিডিয়া) আব্দুল্লাহ মোহাম্মদ শেখ সাদী বলেন, এক স্কুল শিক্ষিকার অভিযোগের ভিত্তিতে হিমেলকে আটক করে থানায় সোপর্দ করি। এসময় তার কাছ থেকে দুইটি মোবাইল সেট ও তিন লক্ষ্য ১০ হাজার টাকা উদ্ধার করা হয়। পরবর্তীতে তার স্বামী বাদী হয়ে তার বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করি।

মামলার বিষয়ে জানতে চাইলে কক্সবাজার সদর মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) সৈয়দ মুনীরুল বলেন, বাদীর স্ত্রী সঙ্গে বিভিন্ন সময় তোলা অশ্লীল ছবি দিয়ে ব্লাকমেইলের চেষ্টা ও চাঁদা দাবি অভিযোগ আনা হয়েছে। তাই অভিযুক্ত মিজানুর রহমান হিমেলের বিরুদ্ধে পর্নোগ্রাফি আইনে মামলা লিপিবদ্ধ হয়েছে। শুক্রবার সকালে আদালতের মাধ্যমে তাকে কারাগারে পাঠানো হবে বলেও জানান পুলিশের এ কর্মকর্তা।




error: কপি রাইট আইনে সর্বস্বত সংক্ষিত