উখিয়ায় সাজাপ্রাপ্ত আসামি যুবদল নেতা রফিক আটক

প্রকাশিত: ৩:২০ অপরাহ্ণ, ডিসেম্বর ২, ২০২০

কক্সবাজারের উখিয়ার জালিয়া পালং ইউনিয়নের সমুদ্র উপকুলীয় জনপদের মুর্তিমান আতংক বহু অপরাধের মূলহোতা একটি মামলার সাজাপ্রাপ্ত পালাতক আসামি রফিকুল হুদাকে (৩৮) পুলিশ গ্রেপ্তার করেছে।


বুধবার (২ ডিসেম্বর) ভোরে উখিয়া থানার উপ- পরিদর্শক শাহ জালাল ও ইনানী পুলিশ ফাঁড়ি যৌথ অভিযান চালিয়ে মেরিন ড্রাইভ সংলগ্ন রোহিঙ্গা ক্যাম্পের একটি বাসা থেকে তাকে গ্রেপ্তার করা হয়।

আটক ব্যাক্তির নাম রফিকুল হুদা স্থানীয় মোহাম্মদ শরিফ’র ছেলে ও কক্সবাজার জেলা যুবদল সদস্য ও সাবেক সাংসদ শাহজাহান চৌধুরীর কাছের লোক হিসেবে পরিচিত।

তিনি মনখালী গ্রামের ষাটোর্ধ বৃদ্ধ মহিলা নুর বানু হত্যার মূল পরিকল্পনাকারী বলেও দাবি করেছেন ভোক্তভূগী পরিবার।

পুলিশ জানায়, তাঁর বিরুদ্ধে চাঁদাবাজি, হত্যা, ডাকাতি, প্রতারণা, ভুমিদস্যু হিসেবে আদালত ও থানায় একাধিক মামলা রয়েছে।

উখিয়া থানা পুলিশের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আহাম্মদ সনজুর মোরশেদ তথ্যের সত্যতা নিশ্চিত করেছেন।

থানা সূত্রে জানা যায়, উখিয়া উপজেলার সাবেক মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান এর দাযের করা একটি মামলায় (মামলা নং ৩০/১৭) যুবদল নেতা রফিকের সাজা হয়। সে দীর্ঘদিন পালাতক ছিল। আজ ভোরে তাকে আটক করা হয়।

ভূমিদস্যু রফিকুল হুদা পুলিশের হাতে ধরা পড়ার খবর ছড়িয়ে পড়লে মনখালী, চেপটখালী, মাদারবনিয়া গ্রামের মানুষের মাঝে আনন্দ উল্লাসে মেতে উঠেছে। অনেক স্থানে একে অপরকে মিষ্টি মুখ বিতরণ করছে বলে জানা গেছে।

নুর বানু হত্যা মামলার বাদী আব্দু রহিম বলেন,

রফিক তার প্রতিপক্ষকে ফাঁসাতে তার ছোটভাই মোজাম্মেলকে দিয়ে আমার মা’কে পরিকল্পিতভাবে হত্যা করেছে। এখন আমাদেরও প্রতিনিয়ত হুমকি দিচ্ছে। আমি চাই তাকে রিমান্ডে এনে হত্যার রহস্য উন্মোচিত করা হউক।

স্থানীয় আওয়ামী লীগ নেতাকর্মীরা জানিয়েছেন, গেল নির্বাচনের আগের রাতে আতংক সৃষ্টি করতে রফিক তার দলবল নিয়ে ভোটকেন্দ্র ফাঁকা গুলিবর্ষণ করেছিল। তার হেফাজতে থাকা এসব অবৈধ অস্ত্র উদ্ধার করা এখন সময়ের দাবি।

এ বিষয়ে জানতে চাইলে উখিয়া থানার অফিসার(ওসি) আহাম্মদ মনজুর মোরশেদ বলেন,

দীর্ঘদিন পালাতক থাকার পর আমরা তাকে আটক করেছি। তার সম্পর্কে আরো বিস্তারিত তথ্য নেয়া হচ্ছে। পরে আদালতে প্রেরণ করা হবে।




error: কপি রাইট আইনে সর্বস্বত সংক্ষিত