মাতারবাড়ি তাপবিদ্যুৎ প্রকল্পে স্থানীয় শ্রমিকদের চাকুরীচ্যুতের প্রতিবাদে মানববন্ধন।

প্রকাশিত: ৩:৪৩ অপরাহ্ণ, জুন ১৬, ২০২০

মুহাম্মদ সেলিম উল্লাহ, মহেশখালীঃ
দেশজুড়ে চলছে সরকারের উন্নয়নের মেগা প্রকল্পের কাজ, এরই ধারাবাহিকতায় কক্সবাজারের মহেশখালীর মাতারবাড়িতে হচ্ছে কয়েকটি মেগাপ্রকল্প, যেখানে রয়েছে তাপ ভিত্তিক বিদ্যুৎ কেন্দ্র সহ গভীর সমুদ্র বন্দর। আর এসব প্রকল্প বাস্তবায়নের অধিগ্রহণ করা হয় প্রচুর পরিমাণ জমি উচিত মূল্য দিয়ে । যার কারণে কর্মহীন হয়ে পড়ে মহেশখালীর অধিকাংশ মানুষ।

তবে মাননীয় প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনা নিজেই বলেছিলেন যে, অধিগ্রহণকৃত জমির মালিকসহ স্থানীয়রাই শ্রমিক হিসেবে কাজ করতে সর্বোচ্চ সুবিধা দেওয়া হবে।সব লোক স্থানীয়ভাবে শ্রমিক নেওয়া হবে স্থানীয় শ্রমিকের সংকট থাকলেই বাহির থেকে শ্রমিক আনা যাবে কাজ করতে ।তবে প্রথম দিকে এই ধারাবাহিকতা চালু থাকলেও এখন কিন্তু শ্রমিক নিয়োগের বিষয়টি প্রায়শ চলে গেছে সিন্ডিকেটদের হাতে। ঐ সিন্ডিকেটরা স্থানীয়দের ছাটাই করে বহিরাগত লোক নিয়োগ দিচ্ছে কমিশন সিস্টেমে বলে জানায় সংশ্লিষ্টরা । যার কারণে আজ মাতারবাড়ি তাপ বিদ্যুৎ কেন্দ্রে নিয়োজিত প্রতিষ্ঠান পেন্টা ওশান কোম্পানির বিরুদ্ধে মানববন্ধন করেন চাকুরীচ্যুত স্থানীয়রা।

এবিষয়ে মাতারবাড়ি চেয়ারম্যান মাষ্টার মোহাম্মদ উল্লাহ এর কাছ থেকে জানতে চাওয়া হলে কক্সবাজার টুডে কে তিনি বলেন, করোনা মহামারিতে বিভিন্নভাবে আমরা ব্যস্ততায় সময় পার করছি, তবে কে বা কার ইশারায় আমার এলাকার শ্রমিকদের চাকুরীচ্যুত করে তারা বাহির থেকে শ্রমিক এনে কাজ তাপবিদ্যুৎ প্রকল্পে কাজ করাটা একেবারে দুঃখজনক। এবিষয়ে তাদের উর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের সাথে কথা হয়েছে তারা খুব শিঘ্রীই এর সমাধান করবেন বলেন আশ্বাস দিয়েছেন।

এদিকে ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সভাপতি জিএম ছমি উদ্দীন থেকে এই বিষয়ে জানতে চাওয়া হলে তিনি কক্সবাজার টুডে কে বলেন আমার এলাকায় প্রকল্প হচ্ছে, অগ্রাধিকার আমাদেরই এটা আমার নেত্রী নিজেই বলেছেন। সুতরাং প্রকল্পে কর্মরত শ্রমিক ৮০% আমার এলাকা থেকে দিতে হবে। এব্যাপারে আমাদের মাননীয় সাংসদ আলহাজ্ব আশেক উল্লাহ রফিক এমপি মহোদয়ের সাথে কথা হয়েছে তার নির্দেশে আমি নিজেই প্রকল্পের উর্ধতন কর্মকর্তাদের সাথে কথা বলেছি এবং তারা এটা খুব শিগ্রই এর সমাধান করবেন বলেন।

এদিকে আজ বেলা ১১ টার দিকে চাকুরীচ্যুত শ্রমিকরা মানববন্ধন করেন প্রকল্পে নিয়োজিত পেন্টা ওশান কোম্পানির বিরুদ্ধে যদি বহিরাগত শ্রমিক আনা বন্ধ না হয় এবং তাদেরকে পুনরায় চাকুরী ফেরত না করে তাহলে তারা কঠোর আন্দোলনের হুশিয়ারি দেন এবং সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের হস্তক্ষেপ কামনা করেন।




error: কপি রাইট আইনে সর্বস্বত সংক্ষিত