শেরপুরে করোনা সংকটে টেলি মেডিসিন সেবা

প্রকাশিত: ৩:২৩ অপরাহ্ণ, মে ১৩, ২০২০

করোনা সংকটের কারণে শেরপুর জেলা হাসপাতালের রোগীর সংখ্যা অনেক কমে গেছে। জরুরি রোগী গেলেও সীমিত আকারে চিকিৎসা দিয়ে ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে রেফার্ড করা হচ্ছে।

কয়েকজন ডাক্তারসহ জেলা স্বাস্থ্য বিভাগের ১৭ জন করোনায় আক্রান্ত হওয়ায় ব্যক্তিগত চেম্বার বন্ধ রেখেছে স্থানীয় সব ডাক্তার। ফলে অসুস্থ থাকার পরও ডাক্তার দেখাতে পারছেন না অনেকে।

এজন্য চিকিৎসা সেবা দিতে ইতিমধ্যে চালু হয়েছে শেরপুর টাইমস টেলি মেডিসিন সেবা। গত ২ মে থেকে ঘরে বসেই ফোন করে বিনামূল্যে দেয়া হচ্ছে অভিজ্ঞ ডাক্তারের পরামর্শ। প্রতিদিন অসুস্থ রোগীদের পালাক্রমে চিকিৎসা সেবা দিচ্ছে বাংলাদেশ মেডিকেল অ্যাসোসিয়েশন (বিএমএ) শেরপুর শাখার চিকিৎসকরা।

মিমোজা রিটেইল চেইন শপের পৃষ্ঠপোষকতায় এবং জেলার অনলাইন গণমাধ্যম শেরপুর টাইমস ডটকমের উদ্যোগে ও শেরপুর জেলা পুলিশ, শেরপুর লাইভ, জাগো শেরপুরের সহায়তায় প্রতিদিন রাত ৯টা থেকে ১০ টা পর্যন্ত ০৯৬০২ ১১১১৫১ এ নাম্বারে ফোন করে এ স্বাস্থ্যসেবা দেয়া হয়।

গত ৯ মে শনিবার পর্যন্ত ৭ জন বিশেষজ্ঞ ডাক্তারদের মধ্যে অর্থো কনসালটেন্ট ডা. এ এম মহিউদ্দিন আরিফ, সার্জারি কনসালটেন্ট ডা. মো. মিজানুর রহমান, গাইনি কনসালটেন্ট ডা. হাসিনাতুল ফেরদৌস লোপা, মেডিসিনের সহকারী অধ্যাপক ডা. মোহাম্মদ নাদিম হাসান, সদর উপজেলা স্বাস্থ্য কর্মকর্তা ডা. মোবারক হোসেন, সদর হাসপাতালের আরএমও ডা. খাইরুল কবির সুমন ও ডা. মামুন জোস এ সেবা দিয়ে যাচ্ছে।

এসব ডাক্তারের কাছে গত ৯ দিনে সেবা নিয়েছেন ১০৭ জন রোগী। আগামী এক মাস নিয়মিতভাবে এ সেবা দেয়ার চিন্তা ভাবনা রয়েছে বলে শেরপুর টাইমস এর নির্বাহী সম্পাদক মহিউদ্দিন সোহেল জানান।

জেলার সিভিল সার্জন ডা. একেএম আনোয়ারুর রৌফ বলেন, করোনা সংকটের কারণে প্রথম প্রথম কয়েকদিন জরুরি ও আউট ডোরে রোগীর সংখ্যা কম থাকলেও এখন আবারও বাড়তে শুরু করেছে এবং হাসপাতালের চিকিৎসা সেবার মান আগের চেয়ে অনেক বৃদ্ধি পেয়েছে। আগামী ১২ মে জেলায় আরও ১১ জন নতুন ডাক্তার যোগদান করবে। তাতে আমাদের স্বাস্থ্য সেবাদান আরও সম্প্রসারিত হবে।

এই সংকটময় মুহূর্তে টেলিমেডিসিন সেবাকে তিনি সাধুবাদ জানিয়েছেন তিনি




error: কপি রাইট আইনে সর্বস্বত সংক্ষিত
%d bloggers like this: