বাংলাদেশ, , সোমবার, ২২ এপ্রিল ২০২৪

আলোচনার শীর্ষে ওরা ৭ জন!

বাংলাদেশ পেপার ডেস্ক ।।  সংবাদটি প্রকাশিত হয়ঃ ২০১৯-১০-২৭ ০৯:২৭:২২  

বিশেষ প্রতিবেদক।

অর্ধ যুগের বেশি সময়ের পর বাংলাদেশ আওয়ামীলীগের ৪টি অঙ্গ ও সহযোগী সংগঠনের সম্মেলন আগামী নভেম্বর মাসে অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে।আওয়ামীলীগ সভাপতি,প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সরাসরি নির্দেশে নির্ধারিত তারিখে সম্মেলন সম্পন্ন করার লক্ষে যুবলীগ,সেচ্ছাসেবকলীগ,কৃষকলীগ ও শ্রমিকলীগ সকল প্রক্রিয়া শুরু করেছে।উল্লেখিত ৪টি সংগঠনের শীর্ষ দুটি পদে নতুন নেতা হিসেবে কারা আসছেন,তা একমাত্র শেখ হাসিনা ছাড়া কেউ জানেনা।তবে অন্য তিনটি সংগঠনের সম্মেলনের চেয়ে আগামী ২৩ নভেম্বর অনুষ্ঠিতব্য যুবলীগের সপ্তম কংগ্রেস দেশব্যাপী আলোচনার কেন্দ্রবিন্দুতে পরিণত হয়েছে।

প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশে শুদ্ধি অভিযানে আমূল পরিবর্তনের মধ্য দিয়ে নতুন যুবলীগ প্রতিষ্ঠার জন্য একমাত্র যুবলীগের নেতৃত্বের ক্ষেত্রে ৫৫বছর বয়সসীমা নির্ধারণ করা হয়েছে। বয়সসীমা নির্ধারণ করার সুবাধে সদ্যগত ১৫১সদস্য বিশিষ্ট কমিটির শতাধিক নেতা আগামীর নেতৃত্ব অযোগ্য হয়ে পড়েছে।যাদের বয়স ৫৫বছরের মধ্য রয়েছে,তাদের মধ্যে সামষ্টিক যোগ্যতায় কারা চেয়ারম্যান/সাধারণ সম্পাদক পদে কাউন্সিলদের ভোটে নির্বাচিত কিংবা যুবলীগের সাংগঠনিক নেত্রী শেখ হাসিনার সুবিবেচনা মনোনীত হতে পারে এমন প্রশ্নে:বিভিন্ন স্থরের নেতাকর্মীদের প্রদেয় মতামতে অন-লাইন জরিপ বেশকিছু পরিচ্ছন্ন সম্ভাব্য প্রার্থীর নাম উঠে এসেছে।

তাদের বিষয়ে বিভিন্ন সূত্রে ব্যাপক তথ্যানুসন্ধান করে জানা যায়-পূর্ব কমিটির অব্যাহতি প্রাপ্ত চেয়ারম্যান, সাধারণ সম্পাদক সহ ২৯জন প্রেসিডিয়াম সদস্যের মধ্যে ১জন বহিস্কৃত এবং ১জন প্রয়াত ছাড়া বাকী ২৭জন প্রেসিডিয়াম সদস্যের ২০জনের বয়স ষাটোর্ধ, ৫জনের বয়স ৫৫বছরের অধিক,মাত্র দু’জনের বয়স ৫৫বছরের কম।এছাড়া অন্যদের বিষয়ে অনুসন্ধানে প্রাপ্ত তথ্যানুযায়ী- যুগ্ন-সম্পাদকের ২/৩ ছাড়া প্রত্যেকের বয়স ৫৫ অতিক্রম হয়েছে,৮জন সাংগঠনিক সম্পাদকের মধ্যে ১জনের ৫০ এর কম,বাকী ৭জনের বয়স ৫০ এর বেশি।

সহ-সম্পাদক ২০জনের মধ্যে ১৫জনের বয়স এবং সদস্য ২৬জনের মধ্যে ১৫জনের বয়স ৫০পেরিয়েছে।এমনি প্রেক্ষিতে যদি যুবলীগের কমিটির মধ্য থেকে নির্ধারিত বয়সসীমা সহ প্রযোজ্য সকল শর্তাবলি পূরণ করার নিরিখে চেয়ারম্যান ও সাধারণ সম্পাদকের দায়িত্ব দেয়া হয় তাহলে সামষ্টিক যোগ্যতায় চেয়ারম্যান পদে উল্লেখযোগ্য হিসেবে বিবেচিতরা হচ্ছেন-প্রেসিডিয়াম সদস্য যথাক্রমে-ফারক হোসেন,আতাউর রহমান আতা,এ্যাড.বেলাল হোসাইন,সাধারণ সম্পাদক পদে যুগ্ন-সম্পাদক মহিউদ্দিন মহি,সুব্রত পাল,ফারুক হোসেন তুহিন, শহিদুল হক চৌধুরী রাসেল অন্যতম।

তবে ছাত্ররাজনীতি থেকে যুবরাজনীতে যোগ্যতার পরিক্ষায় উত্তীর্ণ এবং নৈতিক আর্দশে পরিশুদ্ধতার পাশাপাশি সর্বস্থরের নেতাকর্মীদের কাছে ব্যাপক পরিচিতি ও গ্রহণযোগ্যতার পাশাপাশি দীর্ঘদিন যুবলীগের নেতৃত্বদানের অভিজ্ঞতা থাকায় আতাউর রহমান আতা চেয়ারম্যান এবং অপেক্ষাকৃত তরুণ ও সৃজনশীল কর্মপ্রয়াসে সুপরিচিত শহিদুল হক রাসেল সাধারণ সম্পাদক পদে সকল জল্পনাকল্পনার অবসান ঘটিয়ে চমক দেখানোর সম্ভাবনা রয়েছে বলে নেতাকর্মীরা ধারনা করছেন।যদিও নতুন নেতৃত্বে কারা আসবেন তা সম্পূর্ণ নির্ভর করছে সম্ভাব্য প্রার্থীদের আমলনামার বিচার-বিশ্লেষণে আওয়ামী লীগের সভাপতি শেখ হাসিনার মনোভাবের উপর।


পূর্ববর্তী - পরবর্তী সংবাদ
       
                                             
                           
ফেইসবুকে আমরা