এক মিড়িয়ার হাজার রূপ!

প্রকাশিত: ১২:৫৮ পূর্বাহ্ণ, আগস্ট ২০, ২০২২

মিডিয়া কি আর কিভাবে কাজ করে, এটা কারো অজানা আছে বলে মনে হয় না।মিডিয়ার টিআরপি বাড়াতে তারা যে কত কিছু করতে পারে, একটা নিউজকে কত রকম যে রুপ দিতে পারে, এটাও কোটি কোটি বাঙ্গালির অজানা বলে মনে হয় না আমার।তাই নির্দিষ্ট যে সব মিডিয়া সম্প্রতি পররাষ্ট্রমন্ত্রীর কিছু বক্তব্য নিয়ে ট্রল করতে চাচ্ছে, তাদেরকে নিয়ে কথা বলার রুচি আমার অন্তত নায়।আর বঙ্গবন্ধুর আদর্শকে যারা চর্চা করে, ভালবেসে সমর্থন করে তাদের কাছে জানতে চায় আমি – এই নির্দিষ্ট সংখ্যক মিডিয়া গুলো লক্ষ্য করে দেখুন তো কখন তারা এ দেশের স্বাধীনতাকামী অগ্রসরে সমর্থন বা পাশে ছিল?

বিজ্ঞাপন

তাহলে যারা স্বাধীনতাকামী প্রগতিশীল ও বঙ্গবন্ধুর আদর্শের আদর্শিক,তারা কি বুঝে আর কি চিন্তা করে হুদাই নিজেরাই সেই ট্রল গুলো নিয়ে লাফালাফি করছেন? আওয়ামীলীগ, ছাত্রলীগ,যুবলীগ, স্বেচ্ছাসেবক লীগ,কৃষকলীগ ইত্যাদি সহ সমস্ত সহযোগী সংগঠনের দায়িত্বশীল নেতৃবৃন্দের উচিত এবং সময়ের দাবি এটায় যে, প্রতিটি নেতা-কর্মীর অনলাইন কার্যক্রম মনিটরিং এর আওতায় আনার এবং প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহন করার।

ট্রলের দুটো বিষয় নিয়ে বলছিঃ

*বিশ্বের উন্নত সমস্ত দেশ আজ বিপর্যস্ত,ইউরোপের সকল দেশ চরম বিপাকে পড়েছে আজ।এমনকি ব্রিটেন এবং যুক্তরাষ্ট্রের মত দেশগুলোতে ৪০ বছরের ইতিহাসে সর্বোচ্চ ইনফ্লেশন রেট(মুদ্রাস্ফীতির হার)১১ % এ বেড়েছে।এটা ঠিক,আমাদের দেশের মানুষের ও কষ্ট হচ্ছে বিশ্বের এ পরিস্থিতিতে। তবে বিশ্বের উন্নত,উন্নয়নশীল এবং অনুন্নত দেশগুলোর পরিস্থিতি বিবেচনা করলে বাংলাদেশ অনেক গুনে ভাল আছে এখনো।এটা অবান্তর আর অস্বীকার করার কিছু নেয়।তবে সামনের পরিস্থিতি স্বাভাবিক করতে হবে এবং আমাদের সরকার তা উত্তরণের জন্য কাজ করছে।

*বাংলাদেশ নামক স্বাধীন রাষ্ট্র এটি, ইতিহাসের একমাত্র দেশ যেখানে রক্তের বিনিময়ে এবং হাজার হাজার শহীদদের আত্মত্যাগে মাধ্যমে পেয়েছে। আমাদের স্বাধীনতা যুদ্বে আমাদেরকে সহযোগিতা করা অনেক বন্ধু রাষ্ট্র আছে।তারা বাংলাদেশের পাশে সে থেকে আজ অবধি আছে এবং ছিল।তাদের সমর্থন আমরা চাইতেই পারি।অন্তত আমাদের স্বাধীনতা বিরোধী দেশের কাছে বাংলাদেশ কে সঁপে দেয়নি আমরা।আমরা দু দেশের উন্নয়ন ও এগিয়ে যাওয়া তে সমর্থন বিনিময় করি।এটা সবাই করবে।সম্প্রতি, রাশিয়া-ইউক্রেন যুদ্ধে আমেরিকা ও রাশিয়া দু দেশই বাংলাদেশের সমর্থন চাই নি? আবার, চীন-তাইওয়ান এর উত্তপ্ত পরিস্থিতিতে আমেরিকার রাষ্ট্রদূত তাইওয়ানের জন্য বাংলাদেশের সমর্থন চাই নি?
তাহলে কি আমরা বলবো, আমেরিকা, রাশিয়া ছোট হয়ে গেছে বা বাংলাদেশ তাদের চেয়ে শক্তিশালী হয়েছে। এটা আন্তর্জাতিকভাবে সবাই সবার বন্ধু প্রতীম রাষ্ট্রের সহযোগিতা চাইতেই পারি।যেমনটা আমাদের দেশের নালিশ পার্টি বিএনপি-জামায়াত সারা জীবন পাকিস্তান, আমেরিকার সমর্থনের পথ চেয়ে বসে থাকে।

সুতরাং, এক জিনিস যখন বার বার করতেই থাকে,তখন আর সেটার জুলুস থাকে না।মানুষ খায় না।এসব ট্রল বাংলাদেশ মানুষ বুঝে, জানে এখন।

লেখকঃ

শাখাওয়াত হোসাইন

যুগ্ন-সাধারন সম্পাদক

কক্সবাজার জেলা ছাত্রলীগ।