বাংলাদেশ, , শনিবার, ১৩ এপ্রিল ২০২৪

বোতলবন্দি জ্বিনসহ’ ভূয়া কবিরাজ র‍্যাবের হাতে আটক

বাংলাদেশ পেপার ডেস্ক ।।  সংবাদটি প্রকাশিত হয়ঃ ২০২২-০৪-২১ ১৫:০০:২৮  

চট্টগ্রাম ব্যুরো: কখনও মানবাধিকারকর্মী, কখনও সাংবাদিক, আবার কখনো নিজেকে পরিচয় দেন তান্ত্রিক হিসেবে। সবশেষ মানসিক বিকারগ্রস্ত এক কিশোরকে চিকিৎসা দিয়ে সুস্থ করার আশ্বাস দেয় এবং পরিবারকে গুপ্তধনের লোভ দেখিয়ে হাতিয়ে নিয়েছেন লাখ লাখ টাকা। পরে ভুক্তভোগী পরিবারের অভিযোগের ভিত্তিতে ওই কবিরাজের বাসায় অভিযান চালায় র‌্যাব। সেসময় র‌্যাবের হাত থেকে বাঁচতে উল্টো ঘরে থাকা দুটি বোতলে ‘বন্দি জিনের’ ভয় দেখান কবিরাজ। তবে এতকিছুর পরও শেষ রক্ষা হয়নি তার; ধরা পড়তে হয়েছে ‘বোতলবন্দি দুই জিন’সহ কবিরাজ ইব্রাহিমকে।

র‍্যাব-৭ এর সিনিয়র সহকারী পরিচালক (মিডিয়া) নূরুল আবছার বাংলাদেশ পেপার কে বলেন, ‘ফরহাদুল ইসলাম নামের এক মানসিক বিকারগ্রস্ত মানুষকে কবিরাজি চিকিৎসার মাধ্যমে সুস্থ করে দেবেন বলে আশ্বাস দেন ইব্রাহিম। পরে ভিকটিমকে বাসায় আসতে বলেন ইব্রাহিম। তাকে কিছু তাবিজ ও পানিপড়া দেওয়া হয়। এছাড়া ভাগ্যে বহু মূল্যবান গুপ্তধন আছে বলে জানায় ভিকটিমকে। কবিরাজ ইব্রাহিম তা উদ্ধার করে দিতে পারবেন বলে জানান। আর সেজন্য কিছু টাকা খরচ করতে হবে।’

নূরুল আবছার বলেন, গুপ্তধন উদ্ধারের জন্য কিছু সরঞ্জাম কেনার কথা বলে ফরহাদুল ইসলাম ও তার পরিবার থেকে কবিরাজ ইব্রাহিম বিভিন্ন সময় ৫ লাখ ৯৫ হাজার টাকা হাতিয়ে নেন। টাকাগুলো ফেরত চাইলে কবিরাজ তাদের বেঁধে রাখার জন্য লোকজন ডাকে এবং টাকা চাইলে আধ্যাত্মিক ক্ষমতা দিয়ে ধ্বংস করে দেওয়া হুমকি দেয়। এ অভিযোগ পাওয়ার পর আমরা ইব্রাহিমকে আটক করেছি।’ তিনি আরও বলেন, ‘ইব্রাহিম একজন ভুয়া কবিরাজ এবং প্রতারণার মাধ্যমে তাবিজ, পানি পড়া দিয়ে বিভিন্ন কৌশলে অসহায় নারীদের নিয়ে এসে অবৈধ শারীরিক সম্পর্ক তৈরি করেন। প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে প্রতারণার মাধ্যমে টাকা হাতিয়ে নেওয়ার কথা স্বীকার করেন ইব্রাহিম।

প্রতারক ইব্রাহিমকে চট্টগ্রামের হালিশহর থানায় হস্তান্তর করা হয়েছে বলে জানান তিনি।

 


পূর্ববর্তী - পরবর্তী সংবাদ
       
                                             
                           
ফেইসবুকে আমরা