সোনার পাড়ায় সন্ত্রাসী হামলায় গৃহকর্তা আহত; বাড়িতে ব্যাপক ভাংচুর

প্রকাশিত: ১০:৪১ অপরাহ্ণ, জুলাই ৯, ২০২১

নিজস্ব প্রতিবেদকঃ

নিজের ও পরিবারের নিরাপত্তা চেয়ে থানায় অভিযোগ দায়ের করায় হামলা চালিয়েছে প্রতিপক্ষরা। হামলাকারীদের দায়ে’র কুপে গৃহকর্তা আজিজ উল্লাহর মাথা কেটে যায়। এসময় বসতবাড়িতে ব্যাপক ভাংচুর ও লুটপাট চালিয়েছে হামলাকারীরা। শুক্রবার (৯ জুলাই) দুপুর আড়াইটার দিকে উখিয়ার জালিয়াপালং ইউনিয়নের সোনারপাড়াস্থ ডেইলপাড়া এলাকায় এ হামলার ঘটনা ঘটেছে।

খবর পেয়ে ইনানী পুলিশ ফাঁড়ির সদস্যরা ঘটনাস্থলে এসে আহত গৃহকর্তাকে উদ্ধার করে হাসপাতালে নিয়ে যায়।

হামলায় আহত আজিজ উল্লাহর ছেলে আব্দু শুক্কুর বলেন, আমাদের একটি জমি দখল করতে দীর্ঘদিন ধরে ষড়যন্ত্র করে আসছে আমাদের নিকট আত্মীয় ছৈয়দ উল্লাহ। এ ঘটনায় আমার পিতা বাদি হয়ে গেল কয়েক মাস আগে থানায় একটি অভিযোগ দায়ের করেন। যেটি তদন্তাধীন রয়েছে। সম্প্রতি ক্ষমতার দাপট দেখিয়ে আবারো জমি দখল করতে আসে তারা।

এ সময় আমাকে ও আমার পিতাকে হত্যাসহ মারধর করার হুমকি দেয় তারা। আমি নিজের ও পরিবারের সদস্যদের নিরাপত্তার কথা চিন্তা করে থানায় আরেকটি অভিযোগ দিই।

এতে ক্ষিপ্ত হয়ে আজ (শুক্রবার) জুমার নামাজ শেষে স্থানীয় আবু ছিদ্দিকের ছেলে রিয়াদ (২৪) আমাকে মারতে আসেন। এ নিয়ে আমাদের মাঝে বাকবিতান্ডের ঘটনা ঘটে। নামাজ পড়তে আসা লোকজন আমাদের সরিয়ে দেয়।

কিন্তু দুপুর আড়াইটার দিকে ছৈয়দ উল্লাহর ছেলে মামুদুল করিম জুয়েল (৩৬), তার ভাই জিয়া উল করিম মুরাদ (২৮), ইউচুপ আলীর মেম্বারের ছেলে আবু ছিদ্দিক (৪৫), তার ছেলে মো: শাকিল (২১), আবু তাহের মেম্বারের ছেলে মো: শাহেদ (২৪), তার ভাই সাজ্জাদ (২৪), আবুল কালামের ছেলে আব্দুল্লাহ আল মামুন (২৮) তার ভাই আব্দুল্লাহ আল সাইমুন (২৪) ও মুবিন (২০) এবং সাহাব উদ্দিনের ছেলে নুরুল আবছারসহ (২৫) প্রায় ১৫/২০ জন আমার বাড়িতে সশস্ত্র হামলা চালায়।

হামলাকারীরা আমার বাড়ির ব্যাপক ভাংচুর করেন। আমার বড়ভাইয়ের মোটর সাইকেল ভাংচুর করে ও কুরবানি দেয়ার জন্য ক্রয়কৃত মহিষ লুট করে নিয়ে যায়। পুরো বিষয়টি আমি ইনানী পুলিশ ফাঁড়ির ইনচার্জকে অবহিত করার পর পুলিশ ঘটনাস্থলে আসেন। পুলিশ এসে গুরুতর আহত আমার বাবাকে উদ্ধার করে হাসপাতালে নিয়ে আসা হয়। এ ঘটনায় আমরা চরম নিরাপত্তাহীনতায় রয়েছি।

জানতে চাইলে ঘটনাস্থল পরিদর্শন করা ইনানী পুলিশ ফাঁড়ির এএসআই সাইদুল বলেন, হামলার খবর পেয়ে আমি একদল পুলিশ নিয়ে ঘটনাস্থলে গিয়ে আহত অবস্থায় আজিজ উল্লাহকে উদ্ধার করে হাসপাতালে পাঠিয়েছি।

আহত পরিবারের পক্ষ থেকে থানায় অভিযোগ দিলে ব্যবস্থা নেয়ার কথাও জানান তিনি।




error: কপি রাইট আইনে সর্বস্বত সংক্ষিত