মহেশখালীতে মহিষ চোরের অভিযোগে গরু চোরের বিরুদ্ধে মামলা

প্রকাশিত: ১:৪৯ অপরাহ্ণ, জুন ৮, ২০২১

ইউসুফ বিন হোসাইন, চকরিয়া (কক্সবাজার) প্রতিনিধিঃ

আলোচিত গরুচোর নবীর বিরুদ্ধে মামলা হওয়ায় জনমনে স্বস্তির নিঃশ্বাস।গরু, ছাগল,মহিষ সহ বিভিন্ন প্রজাতির গৃহপালিত পশু চুরির অভিযোগ নবী হোসাইনের বিরুদ্ধে।এই নিয়ে ৯টি চুরি মামলা নবী হোসাইনের বিরুদ্ধে।

চকরিয়া উপজেলার শাহারবিল ইউনিয়নের নবী হোসাইন উরফে নবী চৌধুরী মহেশখালীতে মহিষ চুরির অভিযোগে তার বিরুদ্ধে সোমবার মহেশখালী থানায় মামলা করা হয় ০৬/০৬/২০২১ তারিখ। এই নিয়ে নয়টি চুরি মামলা হয়েছে বলে জানা যায় কথিত নবীর বিরুদ্ধে,দক্ষিণ চট্টগ্রামের গরু,মহিষ চুরের সম্রাট হিসেবে পরিচিত।কক্সবাজার জেলার ভোক্তভোগী মানুষ নবীকে সর্বোচ্চ শাস্তি অথবা ক্রসফায়ার দেওয়ার দাবী জানাচ্ছে।

মহেশখালীর কুতুবজুম ইউনিয়নের তাজিয়াকাটা এলাকা থেকে মহিষ চুরির অভিযোগে নবী হোসেনের বিরুদ্ধে ৬ জুন মামলাটি রুজু হয়েছে। নবী সাহারবিলের কোরালখালী এলাকার হাবিবুর রহমানের ছেলে।

মামলায় ৬ লাখ টাকার মহিষ চুরির অভিযোগ আনা হয়। মামলাটি করেছেন মহিষের মালিক এবাদুল হক। নবীকে প্রধান আসামি ছাড়াও তাঁর ভাই লেদু মিয়াকে ২ নম্বর আসামি করা হয়েছে। এই মামলাটিতে গরু চোর চক্রের আরও সাতজনকে আসামি করা হয়েছে।সচেতন মহল দ্রুত নবী চুরকে আইনের আওতায় এনে দ্রুত শাস্তি নিশ্চিতের দাবী জানাচ্ছে।

এবিষয়ে মহেশখালী থানার ওসির সাথে মুঠোফোনে জানতে চাইলে তিনি বলেন; নবী হোসাইনের বিরুদ্ধে অভিযোগের ভিত্তিতে মহেশখালী থানায় একটা মামলা হয়েছে।আমরা এটির সুষ্ঠু তদন্ত সাপেক্ষে যথাযথ ব্যবস্থা গ্রহণ করব।

ঘটনার সত্যাতা জানতে চাইলে অভিযুক্ত নবী হোসাইন জানান; চকরিয়া থানা পুলিশ আমার বাড়ীতে তল্লাশি চালিয়েছে ।চুরি যাওয়া মহিষ আমার বাড়িতে পাওয়া যায়নি।আমি এই ঘটনায় জড়িত নয়।স্থানীয় চেয়ারম্যান মহসিন বাবুল আমার বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্র করছে।