কক্সবাজারে ৬ সাংবাদিকের বিরুদ্ধে ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে মামলা

প্রকাশিত: ১:৪৪ অপরাহ্ণ, মে ৮, ২০২১

কাইমুল ইসলাম ছোটন (কক্সবাজার প্রতিনিধি)

কক্সবাজারের মহেশখালীর ৬ জন সাংবাদিকের বিরুদ্ধে ‘কলেজ শিক্ষকের নারী কেলেঙ্কারির’ সংবাদ প্রকাশ করায় ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে মামলা করা হয়েছে। মহেশখালী কলেজের শিক্ষক (আইসিটি) আবু ছরওয়ার রানা ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে এই মামলা দায়ের করেন।

এ নিয়ে চলছে তীব্র সমালোচনা। প্রতিবাদ জানাচ্ছে সাংবাদিক সমাজ। ইতোমধ্যেই মামলা প্রত্যাহারে মানববন্ধনের ডাক দিয়েছে সাংবাদিকদের বিভিন্ন সংগঠন।

অভিযুক্তরা সাংবাদিক হলেন, দৈনিক আমার সময় ও স্থানীয় পত্রিকা আমাদের কক্সবাজার পত্রিকার প্রতিনিধি গাজী আবু তাহের, স্থানীয় আজকের দেশবিদেশ পত্রিকার প্রতিনিধি সিরাজুল মোস্তফা রুবেল, দৈনিক ইনানী পত্রিকার প্রতিনিধি আবু নাছের মোঃ হাসান, দৈনিক সৈকত পত্রিকার প্রতিনিধি ফারুক ইকবাল, দৈনিক মেহেদী পত্রিকার প্রতিনিধি এ.কে রিফাত, দৈনিক সাগরদেশ পত্রিকার প্রতিনিধি আজিজ সিকদার।

জানা যায়, গত ১৯ এপ্রিল রাতে মহেশখালী পৌরসভার চরপাড়া এলাকায় আপত্তিকর অবস্থায় এক নারী সহ কলেজ শিক্ষক রানাকে স্থানীয়রা আটক করেন। পরে উক্ত ঘটনায় কলেজ শিক্ষক রানার বিরুদ্ধে স্থানীয়রা মহেশখালী কলেজের অধ্যক্ষ বরাবর অভিযোগ দেন। কলেজ কর্তৃপক্ষ কোন ব্যবস্থা না নেওয়ায় গত ৫ মে চরপাড়া এলাকাবাসী উপজেলা প্রশাসনের কার্যালয়ের সামনে শিক্ষক রানার নারী কেলেঙ্কারির বিচার চেয়ে মানববন্ধন করে এবং উপজেলা নির্বাহী অফিসারের কাছে ৪০ জন এলাকাবাসীর স্বাক্ষরিত স্মারকলিপি জমা দেন।

এই বিষয়ে উপজেলা নির্বাহী অফিসার মোঃ মাহফুজুর রহমান জানান, এলাকাবাসীর অভিযোগের ভিত্তিতে তদন্ত কমিটি গঠন করা হচ্ছে। দ্রুত মূল ঘটনা উন্মোচন করা হবে।

এই ঘটনায় সাংবাদিকরা অনলাইন ও প্রিন্ট মিড়িয়ায় নিউজ করে। এতে ক্ষিপ্ত হয়ে ও মূল ঘটনাকে ধামাচাপা দিতে ঐ শিক্ষক মহেশখালীর ৬ সাংবাদিকের বিরুদ্ধে মিথ্যা অভিযোগে এই মামলা করে বলে মামলায় অভিযুক্ত সাংবাদিকরা জানায়। তারা আরো জানান, এই শিক্ষক দুটি আলোচিত হত্যা মামলার চার্জশীটভুক্ত আসামী।

এ বিষয়ে মহেশখালী উপজেলা প্রেসক্লাবের আহবায়ক স.ম ইকবাল বাহার চৌধুরী বলেন, সাংবাদিকরা সুনির্দিষ্ট তথ্য নিয়ে সংবাদ প্রকাশ করেন। কেউ কষ্ট পেয়ে থাকলে মামলা করতে পারেন। তথ্যবহুল সংবাদ করার পর ও মামলা করলে সংবাদমাধ্যমের কণ্ঠরোধ করার সামিল। একটি মহল ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনের মাধ্যমে সাংবাদিকদের বাক-স্বাধীনতায় হস্তক্ষেপ করতে চাই। অবিলম্বে এই মামলা প্রত্যাহার করতে হবে।

এই ব্যাপারে মামলার বাদী আবু সরওয়ার রানা জানান, তার বিরুদ্ধে এলাকাবাসীর করা নারী সংক্রান্ত অভিযোগ মিথ্যা। সে ঘটনার সাথে জড়িত নয়।