বৃহস্পতিবার, ২৫ এপ্রিল ২০১৯, ১১:১৫ অপরাহ্ন

send us mail/news: bangladeshpaper@yahoo.com
শিরোনাম:
অভিমানের ক্রিকেট কেরিয়ারের ইতি টানলেন নাজমুল হাসান। আয় নেই, তবুও ডুপ্লেক্স বাড়ি বানালেন যুবলীগ নেতা অনেকদিন পর সৈম্যের ব্যাটে রান। খেল্যেন কেরিয়ার সেরা ইংস। এই যেন ব্যাট নয় তরবারি। বাংলাদেশের লিষ্ট এ ইতিহাসের একমাত্র ২০০ রানের ইনিংস।   বিসিবি ধ্বংস করে দিল এক ডায়মন্ডের ক্যারিয়ার। ক্রিকেটে ডাকনামা অঘটনের ক্রিকেট। ঘটে চলেছে একের পর এক অঘটন। এইবার ক্রিকেট সাক্ষি হল একদিনের অন্তর্জাতিক ম্যাচে ২৫ বলে শতকের। ছাত্রলীগের পূর্ণাঙ্গ কমিটি রোববারের মধ্যে ধর্মীয় বিষয়ে আমরা হস্তক্ষেপ করব না: হাইকোর্ট একসঙ্গে জন্ম নেয়া লক্ষ্মীপুরের সেই ৭ শিশুর মৃত্যু সময় হয়েছে…রোবটরা আসছে
পালংখালীতে মধ্যযুগীয় কায়দায় শিশু নির্যাতনের অভিযোগ

পালংখালীতে মধ্যযুগীয় কায়দায় শিশু নির্যাতনের অভিযোগ

বিশেষ প্রতিবেদক:

লাকড়ি চুরির অভিযোগ কক্সবাজারের উখিয়ার পালংখালী ইউনিয়নে ভাদিতলী গ্রামে দুই শিশুকে মধ্যযুগীয় কায়দায় নির্যাতন চালানো হয়েছে বলে অভিযোগ উঠেছে। স্থানীয়রা মুমূর্ষ অবস্থায় শিশুদুটি উদ্ধার করে পালংখালী বাজারে প্রাথমিক চিকিৎসা সেবা প্রদান করেছেন। এ ঘটনায় সচেতন মহলে ক্ষোভ দেখা দিয়েছে। তারা অভিযুক্তদের আইনের আওতায় আনার দাবি জানিয়েছেন।

বৃহস্পতিবার ২১মার্চ দুপুরে একটি করাত কলে নির্যাতনের এ ঘটনা ঘটেছে।

নির্যাতনের শিকার শিশু দুইজন সহোদর বলে জানিয়েছেন স্থানীয়রা। তারা হলেন, পালংখালী ইউনিয়নের কালু ফকিরের ঘোনার মোহাম্মদ হোসেনের ছেলে আরফাত (৮) ও ইব্রাহিম (১০)।

দুই শিশুর পিতা মোহামদ হোসেন জানান, নির্যানতকারী লোকটি রোহিঙ্গা হলেও করাতকলের মালিক স্থানীয় ও প্রভাবশালী। তাদের বিরুদ্ধে থানায় অভিযোগও করলে হামলার আশঙ্কা রয়েছে।

তিনি জানান, গফুর ও ফয়সালের নেতৃত্বে এ করাতকলটি পরিচালিত হচ্ছে। প্রতিদিন উক্ত কলে সরকারি বনবিভাগের গাছ কেটে বিক্রি করা হচ্ছে।

প্রত্যক্ষদর্শী পালংখালী ভাদিতলা গ্রামের আমির হোসেন জানান, হোসেন আহম্মদ প্রকাশ ‘ধলাইয়ার বা’ নামে এক ব্যক্তি দু’শিশুকে দৌড়াচ্ছিলেন। শুনেছি শিশু দুটিকে গাছের সাথে বেঁধে রেখে মধ্যযুগীয় কায়দায় নির্যাতন চালানো হয়েছে।

স্থানীয়রা জানিয়েছেন, ভাদিতলা গ্রামে জনৈক গফুর মিয়া ও ফয়সালসহ বেশ কয়েকজন কাঠ ব্যবসায়ী একটি করাত কল বসিয়ে দীর্ঘদিন ধরে ব্যবসা করে আসছিলেন। উক্ত মিলে পাহারাদার হিসেবে কাজ করতেন হোসেন আহম্মদ প্রকাশ ধলাইয়ার বা নামে এক ব্যক্তি। বৃহস্পতিবার দুপুরে মিল থেকে লাকড়ি চুরির অভিযোগে দুটি শিশুকে ধরে গাছের সাথে কয়েক ঘন্টা বেঁধে রাখে পাহারাদার। পরে উলঙ্গ করে তাদের নির্যাতন চালানো হয়। তাদের শোর চিৎকারে স্থানীয় লোকজন ঘটনাস্থল থেকে তাদের উদ্ধার করে পালংখালী বাজারে নিয়ে যায়। সেখানে পল্লি চিকিৎসকদের মাধ্যমে সেবা দেয়া হয় শিশু দুটিকে।

অভিযুক্ত হোসেন আহম্মদ জানান, মালিকের নির্দেশ তাদের নির্যাতন চালানো হয়েছে। যেন ভবিষ্যতে আর কখনো চুরি করার সাহস না দেখাই।

এ ব্যাপারে মিলের মালিক পক্ষের একজন গফুর মিয়ার সাথে কথা বলতে চাইলে তিনি বলেন, শিশু দুটির উপর যে নির্যাতনের কথা বলা হচ্ছেে উক্ত বিষয়ে আমি অবগতও নয়। তাছাড়া আমি মিল ব্যবসার সাথে জড়িতও নয়। তবে কয়েকজন ব্যবসায়ী একত্রিত হয়ে করাত কলের উক্ত ব্যবসা চালিয়ে যাচ্ছে।

জানতে চাইলে স্থানীয় ইউনিয়নের ৭নং ওয়ার্ডের ইউপি সদস্য নুরুল হক জানান, ঘটনা আমি শুনেছি। তবে আমি উক্ত ঘটনা ৮নং ওয়ার্ডে হওয়ায় আমি কোন মন্তব্য করতে পারবো না।

৮ নং ওয়ার্ডের ইউপি সদস্য মো: কামাল উদ্দিন ঘটনা সম্পর্কে অবগত নন বলে জানান।

পালংখালী ইউনিয়নের চেয়ারম্যান গফুর উদ্দিন বলেন, এ ঘটনা সম্পর্কে কেউ আমাকে অবগত করেনি। তবে ঔ এলাকাটি একটি অপরাধ প্রবণ এলাকা হওয়ায় ভোক্তভূগীদের থানায় গিয়ে অভিযোগ দেয়ার অনুরোধ করেন তিনি।

উখিয়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা আবুল খায়ের জানান, শিশু নির্যাতনের বিষয়ে এখনো কেউ অভিযোগ করেনি। অভিযোগ পেলে আইনগত ব্যবস্থা নেয়ার কথা জানান তিনি।

Comments

মন্তব্য করুন

* বিজ্ঞাপন দিতে চাইলে যোগাযোগ করুন-01886610666*


বাংলাদেশ পেপারে ব্যবহৃত সকল সংবাদ এবং আলোকচিত্র বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করা বে-আইনি। স্বত্বাধিকারী bangladesh.com দ্বারা সংরক্ষিত। (নিবন্ধনের জন্য আবেদিত)
Desing & Developed BY MONTAKIM